ads

MT-ads

Tuesday, April 25, 2017

রোজা ফরজ হওয়ার শর্তসমূহ। রোজা ফরজ হওয়ার দলিল

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম। শকল ভাইদের জন্য আমার অন্তরের অন্তরস্থল থেকে সালাম- আসসালামু আলাইকুম। সাথে রমজানের অগ্রিম শুভেচ্ছা।

রমজান শুরু হতে কিছু দিন বাকি আছে , তাই আমাদের উচিৎ মাহে রমজান এর পূর্ব প্রস্ততি নেয়ার।
আল্লাহ রাব্বুল আলামিন আমাদের সঠিকভাবে রোজা রাখার তৌফিক দিন, রজার রাখার মত শকল ধরনের বাঁধা বিপত্তি উপেক্ষা করে এবং আমাদের রোজা এবং আমলসমূহ সঠিক ভাবে পালনের তৌফিক পাওয়ার আশায় আজকের পোস্ট শুরু করলাম ।

রোজা ফরজ হওয়ার দলিল:

পবিত্র কুরআনে আল্লাহপাক ইরশাদ করেন-

    يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُوا كُتِبَ عَلَيْكُمُ الصِّيَامُ كَمَا كُتِبَ عَلَى الَّذِينَ مِن قَبْلِكُمْ لَعَلَّكُمْ تَتَّقُونَ
    হে ঈমানদারগণ! তোমাদের উপর রোজা ফরয করা হয়েছে, যেরূপ ফরজ করা হয়েছিল তোমাদের পূর্ববর্তী লোকদের উপর, যেন তোমরা পরহেযগারী অর্জন করতে পার। [২:১৮৩]


    أَيَّامًا مَّعْدُودَاتٍ ۚ فَمَن كَانَ مِنكُم مَّرِيضًا أَوْ عَلَىٰ سَفَرٍ فَعِدَّةٌ مِّنْ أَيَّامٍ أُخَرَ ۚ وَعَلَى الَّذِينَ يُطِيقُونَهُ فِدْيَةٌ طَعَامُ مِسْكِينٍ ۖ فَمَن تَطَوَّعَ خَيْرًا فَهُوَ خَيْرٌ لَّهُ ۚ وَأَن تَصُومُوا خَيْرٌ لَّكُمْ ۖ إِن كُنتُمْ تَعْلَمُونَ

    গণনার কয়েকটি দিনের জন্য অতঃপর তোমাদের মধ্যে যে, অসুখ থাকবে অথবা সফরে থাকবে, তার পক্ষে অন্য সময়ে সে রোজা পূরণ করে নিতে হবে। আর এটি যাদের জন্য অত্যন্ত কষ্ট দায়ক হয়, তারা এর পরিবর্তে একজন মিসকীনকে খাদ্যদান করবে। যে ব্যক্তি খুশীর সাথে সৎকর্ম করে, তা তার জন্য কল্যাণকর হয়। আর যদি রোজা রাখ, তবে তোমাদের জন্যে বিশেষ কল্যাণকর, যদি তোমরা তা বুঝতে পার। [২:১৮৪]

বিশ্লেষণ:
আলোচ্য আয়াতদ্বয়ে এই উম্মতের ঈমানদারগণকে উদ্দেশ্য করে আল্লহতায়ালা রোজা রাখার নির্দেশ প্রদান করেন। রোজা হলো একমাত্র আল্লাহতায়ালার সন্তুষ্টির জন্য পানাহার ও যৌনাচার হতে বিরত থাকা। এর দ্বারা আত্নার পরিশুদ্ধি ও স্বভাবের পরিমার্জনা অর্জিত হয়।আল্লাহতায়ালা এই নির্দেশের সাথে সাথে আরো বলেন-তোমাদের পুর্ববতী উম্মতগণের ওপর ও রোজা ফরজ করা হয়েছিলো।তারা তা পালন করতে যত্নবান ছিলো। আল্লাহতায়ালা অন্য আয়াতে বলেন-

     আমি তোমাদের প্রত্যেকের জন্য পথ ও পদ্ধতি নির্ধারন করে দিয়েছি।যদি আল্লাহ ইচ্ছা করতেন অবশ্যই সকলকে একই উম্মত করে দিতেন।কিন্তু তোমাদেরকে যা কিছু তিনি দিয়েছেন তা দ্বারা তোমাদেরকে পরীক্ষা করার উদ্দেশ্য। অতএব তোমরা ভালো কাজে প্রতিযোগিতার সাথে অগ্রসর হও।

হাদীস থেকে ব্যাখ্যা:
''গণনার কয়েকটি দিনের জন্য অতঃপর তোমাদের মধ্যে যে, অসুখ থাকবে অথবা সফরে থাকবে, তার পক্ষে অন্য সময়ে সে রোজা পূরণ করে নিতে হবে। আর এটি যাদের জন্য অত্যন্ত কষ্ট দায়ক হয়, তারা এর পরিবর্তে একজন মিসকীনকে খাদ্যদান করবে।''এ নির্দেশ আসার পর সাহাবীগনের কেউ কেউ সাওম পালনে সক্ষম হওয়ার পরও তাদের কেউ কেউ সাওম ত্যাগ করে একদিনের পরিবর্তে মিসকিনকে খাওয়াতো।এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ''আর সাওম পালন করাই তোমাদের জন্য উত্তম'' এ আয়াতটি নাযিল হয় যা পূর্বের হুকুমকে রহিত করে এবং সবাইকে সাওম পালনেরই নির্দেশ দেয়া হয়। [রেফারেন্সঃ বুখারী, হাদিস নং: ১২৮১]

রোজা কি?
রোজা শব্দটি ফার্সি শব্দ আমরা আরবী শব্দ থেকে বলছি সিয়াম অর্থ হচ্ছে রোজা। সিয়াম শব্দটি এসেছে সাওম থেকে যার অর্থ বিরত থাকা। পারিভাষিক অর্থে সুবহে সাদিক থেকে সুর্যাস্ত না হওয়া পর্যন্ত সমস্তপ্রকার খাদ্যদ্রব্য, পানিয়দ্রব্য থেকে বিরত থাকা ।

রোজা কার জন্য ফরজ?

রোজা কাদের উপরে ফরজ সে বিষয়ে আলোচনা করছি। রোজা ৮ শ্রেণী মানুষের ওপর ফরজ।

১. মুসলমান হওয়া।

মুসলিম ব্যক্তির জন্য রোজা রাখা ফরজ। রোজা কোন অমুসলিমের জন্য ফরজ নয়।

২. বালেগ হওয়া।

নাবালগের ওপর রোজা ফরজ নয়, অর্থাৎ ১২ বৎসর বয়সের কম বয়স হলে রোজা ফরজ হবেনা।

৩. সুস্থব্যক্তি হওয়া।

শারীরিক ভাবে অসুস্থ ব্যক্তির জন্য রোজা রাখার নিয়ম নাই। তবে সাধারন অসুখ বিসুখ হলে যদি সে রোজা রাখার উপযোগী হয় তবে সে রোজা রাখতে পারবে।

৪.সুস্থ মস্তিস্কের অধিকারী হওয়া।

পাগলের ওপর রোজা ফরজ নয়।

৫.স্বাধীন হওয়া।

পরাধীন নয় এমন ব্যক্তি হওয়া।

৬.সজ্ঞান হওয়া।

অর্থাৎ যিনি রোজা রাখবেন তিনি নিজ জ্ঞানে বা স্বেচ্ছায় আল্লাহর হুকুম পালন করবেন।
৭.মুকিম হওয়া।
অর্থাৎ স্তায়ীবাসিন্দা হওয়া। মুসাফিরের ওপর রোজা ফরজের ব্যপারে একটু ভিন্নতা আছে। যেমন কষ্টসাধ্য ভ্রমন হলে পরবর্তীতে রোজা আদায়ের বিধান আছে। আমি মনে করি বর্তমানে সফর অনেক আরামের সাথে করা যায় তাই সফর অবস্থায় একমাত্র কাহিল হয়ে না পড়লে রোজা রাখা উচিৎ।

৮.তাহীরা

অর্থাৎ পবিত্রতা
হায়েজ-নেফাস মুক্ত হতে হবে।

শেষ কথা
অনেকদিন আগে পড়েছিলাম প্রায় ১২ বৎসর আগে। প্রয়োজনীয় বইপত্র সংগ্রহে না থাকায় লেখাটা সংক্ষিপ্ত আকারে দিতে হচ্ছে।
আল্লাহ রাব্বুল আলামিন আমাদের রোজাসমুহকে কবুল করুন। আমীন
আর নিয়মিত ভিজিট করতে থাকুন আই ব্লগ। আল্লাহ চাইলে রোজা নিয়ে কোরআন ও হাদিস এর আলোকে আরো বিস্তারিত লিখব এবং কিছু ইসলামিক সংগীত উপহার দেব  আশা করছি। আমার জন্য দুয়া করবেন। আল্লাহ হাফেজ।

ক্রেডিটঃ যুবায়ের আহাম্মেদ

ইন্দ্রজাল কমিক্স–রাজা মিডাসের দুঃসপ্ন / Bangla Pdf Indrajal Comics free download-Raja midaser dussopno

বই এর নামঃ রাজা মিডাসের দুঃসপ্ন
লেখকঃ ইন্দ্রনাথ ব্যানার্জি
সাইজঃ 38.88 MB
প্রকাশনাঃ প্রকাশনী
ফরম্যাটঃ PDF পিডিএফ
সৌজন্যেঃ Free bangla pdf books
রেজুলেশনঃ ৬০০ DPI
বইয়ের ধরণঃ File size: 38.88 MB























জাদের দরকার এখান থেকে ডাউনলোড করে নিন
Download

Monday, April 24, 2017

আজ পবিত্র শবে মেরাজ










আজ পবিত্র লাইলাতুল মেরাজ বা শবে মেরাজ। মেরাজ অর্থ ঊর্ধ্বগমন।



























এই পোস্ট গুলো ও পড়ুন। বড় ভাই এর লিখা

  1. লাইলাতুল মেরাজ এর বিস্তারিত
  2. শবে মে'রাজের নামাজ

     

    এই ধরনের আরো ইসলামিক পোস্ট পেতে এখানে ক্লিক করুন

     

লাইলাতুল মেরাজ এর বিস্তারিত

লাইলাতুল মেরাজ
 আসসালামু আলাইকুম। কেমন আছেন মডার্ন টেকনোলজি এর বন্ধুরা?? আসাকরি ভাল আছেন?? আমিও মহান আল্লাহ পাকের রহ্মতে ভাল আছি। চলুন মূল বিষয়ে আসি।

শবে মেরাজ ঠিক আল্লাহ্‌তায়ালার একটি কুদরত। নবীজি (সঃ) কে আল্লাহ্‌তায়ালা মসজিদুল হারাম (মক্কা) থেকে বাইতুল মুকাদ্দাস (বর্তমান ফিলিস্তিনে অবস্থিত), সেখান থেকে সপ্ত আকাশ ভ্রমণ করিয়ে মহান আল্লাহ্‌তায়ালার সাক্ষাত লাভ করিয়ে ধন্য করেন। নবীজি (সঃ) কে আল্লাহ্‌তায়ালা জান্নাত-জাহান্নামের ভবিষ্যৎ চিত্র দেখান।এছাড়াও মহান আল্লাহ্‌তায়ালার অসংখ্য কুদরতের নমুনা নবীজি (সঃ) স্বচক্ষে প্রত্যক্ষ করেন। আল্লাহ্‌তায়ালা তার প্রিয় হাবিবকে এই উম্মতের জন্য ৫ ওয়াক্ত নামাজ, সুরা তওবার শেষ ২ আয়াত (২৮৫-২৮৬),আর বান্দা তওবা করলে ক্ষমার অঙ্গীকার নিয়ে আসেন।


এই রাতে ব্যক্তিগত ইবাদাত যেমন নফল নামাজ, কুরান তিলাওয়াত, জিকির ইত্যাদির মাধ্যমে অতিবাহিত করা যেতে পারে...ধরাবাঁধা কোনো নিয়ম নেই যে এতো রাকাত নামাজ পরতে হবে... তবে কমপক্ষে ২,২ রাকাত করে ১২ রাকাত আদায় করাটাই উত্তম। আর সারা রাত জেগে করাটা আরো ভাল। তবে বাধা ধরা নিয়ম নেই যে যার খুশিমতো আমল করতে পারবে।
শবে মিরাজ এর রাতের নামাজ কিভাবে আদায় করবেন শেটা জানতে এখানে ক্লিক করুন। আমি এটি অনেক আগে লিখে ছিলাম তাই লিংক দিয়েদিলাম। নতুন করে লিখলাম না।
জারা সংক্ষিপ্ত ভাবে বুঝতে চান তারা আমার আগের পোস্ট টা পড়ুন =>>  শবে মে'রাজের নামাজ 


আসুন লাইলাতুল মেরাজ সম্পর্কে ( উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে ) আমরা বিস্তারিত জানার চেষ্টা করি।

বিদ্রঃ নিচের লিখাগুলির যেখানে যেখানে মোহাম্মদ (সঃ) এর নাম আছে সেখানে সেখানে অবসসই দুরুদ পড়তে হবে। আর সব থেকে ছুট দুরুদ হল "সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম" যা ব্র্যাকেটে বোঝানো হয় (সঃ) এই ভাবে।

আবারো বলছি আমি আগেই বলেছি নিচের টুকু উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে সংগ্রহীত সেখানে অনেক যায়গায় দুরুদ ব্যাবহার করা হয়নি তাই আপনারা (সঃ) পড়ে নিবেন।









বিবরণ





















































 শবে মে'রাজের নামাজ কিভাবে আদায় করতে হয় এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

আর ইসলামিক আরো পস্ট পেতে এখানে ক্লিক করুন

আল্লাহ আপনাকে ও আমাকে এর সঠিক আমল করার তওফিক দান করুন। আমিন
আর ভুল গুলি ক্ষমা করে ভুলিয়ে দিক। আমিন

ওয়াইফাই এর গতি বাড়ানোর সহজ ৫টি উপায়










বর্তমানে বাংলাদেশে নেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা অনেক বেড়ে গিয়েছে। মোবাইল কোম্পানিগুলোর চমৎকার অফারের কারণেই হোক বা নিজের প্রয়োজনে।




























বাড়ি থেকে বের হবার সময় এই দোয়াটি পড়লে ৭০ হাজার ফেরেস্তা তাকে চারদিক থেকে রক্ষা করে











আসসালামুয়ালাইকুম।

মানবজীবনের সকলসমস্যার
সমাধানদিতে পারেনকেবল পবিত্র
কোরআনে কারীম।
পবিত্রকোরআনের সূরা তুল বাকারায়
এমন একটি আয়াতরয়েছে যেটি
নিয়মিত পাঠ করলে ঘরেদারিদ্রতা
প্রবেশ করতে পারে না।
এইআয়াতকে বিশেষ দোয়াও বলা
হয়ে থাকে।





















































































জেনে নিন বজ্রপাতের সময় যা করতে বলেছেন মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)


পবিত্র কোরআনে বলা হয়েছে জীন ও মানুষ ছাড়া সৃষ্টির সবকিছু সর্বদা আল্লাহর প্রশংসা করতে থাকে। সুরা রাদের ১৩ নম্বর আয়াতে বজ্রপাত সম্পর্কে বলা হয়েছে।
এখানে বলা হয়েছে, ফেরেশতা ও আসমানে থাকা বজ্র সর্বদা আল্লাহর প্রশংসায় মত্ত থাকেন। অত:পর আল্লাহ যাকে ইচ্ছা তাকে বজ্র দ্বারা আঘাত করেন।
বজ্রপাতের সময় মহানবী (স:) একটি আয়াত পাঠ করতে বলেছেন। সাহাবী হজরত আবদুল্লাহ ইবনে জুবাইর রাদিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত, নিশ্চয় রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম যখন মেঘের গর্জন শুনতেন তখন কথাবার্তা ছেড়ে দিতেন এবং এ আয়াত পাঠ করতেন-

মডেম এবং রাউটারের মধ্যকার পার্থক্য, কিভাবে মডেম এবং রাউটার কাজ করে।














আপনারা অনেকেই হয়তো এই বিষয়টি জানেন না যে রাউটার এবং মডেম দুটো জিনিসের পৃথক পৃথক কাজে ব্যবহারিত হয়।
জেনে থাকলেও হয়তো এটা জানেন না যে আসলে এই দুইটি জিনিস কিভাবে কাজ করে, আর অনেকেই হয়তো নাম চেনা চিনে থাকলেও  আসলে জানেন না এই দুই জিনিসের কাজটা কি আসলে ?





































মডেম

































এয়ারটেল 1GB ইন্টারনেট 50TK 2 দিন মেয়াদ ।











এয়ারটেল 1 জিবি 50 টাকা ইন্টারনেট অফার অ্যাক্টিভেশন বিস্তারিত:

Sunday, April 23, 2017

গ্রামীনফোন ১৪০এমবি ৭দিন ১৪ টাকায়
















বন্ধ ইন্টারনেট স্পেশাল অফার এটা শুধু বন্ধ সিমের জন্য অক্টোবর, ২০১৬ থেকে ইন্টারনেট ব্যবহার না করে থাকা গ্রহকদের জন্য প্রযোজ্য

ads

........................ম্যাসেজ......................

শুধু নিজে শিক্ষিত হলে হবেনা, প্রথমে বিবেকটাকে শিক্ষিত করতে হবে।
---- আব্দুল্লাহ আল মাসুদ